মেনু নির্বাচন করুন

চলমান প্রকল্প

২০১৯-২০ অর্থবছরে ময়মনসিংহ অঞ্চলে চলমান উন্নয়ন প্রকল্পসমূহের তথ্য

 

 

ক্র.

নং

প্রকল্পের নাম  

বাসত্মবায়নকারী সংস্থা

প্রকল্পের মোট প্রক্কলিত ব্যয় (লক্ষ টাকা মেয়াদ

প্রকল্প পরিচালকের নাম, টিলিফোন, মোবাইল নম্বর

প্রকল্পের প্রধান উদ্দেশ্য

প্রকল্প এলাকা

প্রধান কার্যাবলী

১।

ন্যশনাল এগ্রিকালচার টেকনোলজি প্রোগ্রাম -২য় পর্যায় (এনএটিপি-২)

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর

 

৫২৬৫৫.০০

(অক্টোবর/১৫-সেপ্টেম্বর/২১)

 

আজহারুল ইসলাম সিদ্দিকী,

ফোনঃ ৮৮-০২-৫৮১৫৫৬১৩,

মোবাঃ ০১৭১৮৯৬৫১৪৯

উদ্দেশ্যঃ ১) প্রধান প্রধান ফসলের উৎপাদনশীলতা ফসলভেদে ১০-১৫ ভাগ বৃদ্ধি করা; ২) সর্বমোট ২৭১৫০ টি সিআইজি দল গঠন; ৩) ৬০% সিআইজি গ্রম্নপে সদস্যদের মধ্যে কমপক্ষে ১ (এক)টি করে নতুন প্রযুক্তি গ্রহণ করবে; ৪) প্রকল্প সেবাপ্রাপ্ত ৯৩% কৃষককে সমেত্মাষজনক সেবা প্রদান; ৫) মানসম্পন্ন ফসলের চারা/কলম উৎপাদনের জন্য হর্টিকালচার সেন্টারের উন্নয়ন; ৬) বীজ প্রত্যয়ন এজেন্সি ও পিপি উইঃ, ডিএই’র গবেষনাগার উন্নয়ন।

৫৭টি জেলার ২৭০টি উপজেলা

কার্যক্রম ঃ প্রশিক্ষণ, সিআইজি গঠন, পরিকল্পনা প্রণয়ন প্রদর্শনী স্থাপন, মাঠ দিবস, হর্টিকালচার সেন্টার উন্নয়ন কার্যক্রম, বীজ প্রত্যায়ন এজেন্সি ও ও পিপি উইং গবেষণাগার উন্নয়ন শক্তিশালীকরণ,  লজিষ্টিক সাপোর্ট, কৃষি যন্ত্রপাতি ও অফিস সরঞ্জাম।  

২।

কন্দাল ফসল উন্নয়ন প্রকল্প

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর

১৫৬৩১.৮৯

মেয়াদঃ মার্চ/২০১৯ হতে

ডিসেম্বর/২০২৩ পর্যন্ত।

মোখলেছুর রহমান

ক) প্রকল্প এলাকায় কন্দাল ফসল উৎপাদন বৃদ্ধির মাধ্যমে এ ধরনের ফসলের জমির পরিমান ২০-২৫% বৃদ্ধি করা। খ) বিএআরআই কর্তৃক উদ্ভাবিত আলু, মিষ্টিআলু, ওলকচু, মুখিকচু, পানিকচু, লতিকচু, কাসাভা ও গাছআলুর প্রমাণিত জাতসমূহ সম্প্রসারণ করা গ) সুবিধাবঞ্চিত ও সিডর আক্রান্ত এলাকায় প্রশিক্ষণ,  উদ্বুদ্ধকরণ, প্রদর্শনী কার্যক্রমের মাধ্যমে দক্ষ জনবল সৃষ্টি, কন্দাল ফসল আবাদ বৃদ্ধিকরণ ও পু্ষ্টিমান উন্নয়ন। ঘ) উন্নত জাতের মানসম্পন্ন বীজ উৎপাদন, বীজ সংরক্ষণ ও বাজারজাতকরণ ব্যবস্থার উন্নয়ন। ঙ) বিদেশে কন্দাল ফসল রপ্তানির মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন।

বাংলাদেশের ৬০ টি জেলার ১৫০ টি উপজেলা

প্রদর্শনী-২৮৪৪০টি, প্রশিক্ষণ-৬৯৮১ ব্যাচ, বৈদেশিক প্রশিক্ষণ- ৫০ জন, বৈদেশিক শিক্ষা সফর-৫০ জন, মাঠ দিবস-২৮৪৪ টি, উদ্বুদ্ধকরণ ভ্রমণ-৪৫০ টি, কৃষি মেলা-৩০০ টি, আঞ্চলিক কম©শালা-২৬ টি, জাতীয় কর্মশালা-৩ টি,আলু সংরক্ষণাগার-১৫০ টি

৩।

খামার পর্যায়ে উন্নত পানি ব্যবস্থাপনা প্রযুক্তির মাধ্যমে ফসল

তেলজাতীয় ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি প্রকল্প

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর

উৎপাদন বৃদ্ধি প্রকল্প,

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর

 

৬৮৯৩.০০

(জুলা

২২২১৬.৮৭

 (জুলাই/২০২০-জুন/২৫)

ই/১৩-জুন/২০), ১ম সংশোধিত

 

মোঃ জসিম উদ্দীন আলমগীর হোসেন  খান, ফোনঃ ৮৮-০২-৮১৪৪৩৮৬,

 মোবাঃ ০১৭১৫০২৭৪৯৫

উদ্দেশ্যঃ ১) মাঠ পর্যায়ে যথো

প্রধান উদ্দেশ্যঃ তেলজাতীয় ফসলের সম্প্রসারণ এবং উৎপাদন বৃদ্ধির মাধ্যমে দেশে ভোজ্যতেলের চাহিদাপূরণ ও আমদানি ব্যয় হ্রাস করা।

সুনির্দিষ্ট উদ্দেশ্য:

  • প্রচলিত শস্য  বিন্যাসে গবেষণা প্রতিষ্ঠানের প্রমাণিত স্বল্পমেয়াদী তেল ফসলের আধুনিক জাত অন্তর্ভুক্ত করে বর্তমান তেল ফসলের (সরিষা, তিল,  ‍সূর্যমুখি, চীনাবাদাম, সয়াবিন) আবাদী এলাকা ৭.২৪ লক্ষ হেক্টর (ডিএই: ২০১৭-১৮) থেকে ১৫-২০% বৃদ্ধি করা।
  • বিএআরআই ও বিনা কর্তৃক উদ্ভাবিত তেল ফসলের আধুনিক প্রযুক্তির সম্প্রসারণ এবং মৌ-চাষ অন্তর্ভুক্ত করে তেলজাতীয় ফসলের হেক্টর প্রতি ফলন ১৫- ২০% বৃদ্ধি করা।
  • ব্লকভিত্তিক কৃষক গ্রুপ (৭৫৭২টি) গঠনের মাধ্যমে তেল ফসলের আবাদ সম্প্রসারণ এবং টেকসই করা।
  • গবেষণা প্রতিষ্ঠানের উৎপাদিত প্রজনন বীজ ব্যবহার করে প্রকল্প মেয়াদে বিএডিসি কর্তৃক ১০৫২.৩২০ মে. টন ভিত্তি বীজ উৎপাদন এবং সরবরাহ নিশ্চিত করা।
  • তেল ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধির মাধ্যমে দেশে ভোজ্য তেল আমদানি বাবদ প্রায় ১৫০০ কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয় করা।

পযুক্ত  পানি ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে সেচের পানির অপচয় কমিয়ে সেচ দক্ষতা বৃদ্ধি, সেচ এলাকা সম্প্রসারণ ও সেচ খরচ কমানো; ২) সেচ যন্ত্রপাতি ব্যবহারকারী, চালক বা মেরামতকারীদের দক্ষতা উন্নয়নের জন্য প্রশিক্ষণ প্রদান।

৪৫টি ৬৪টি জেলার ২৫০টি উপজেলাজেলার ৯০টি উপজেলা

কার্যক্রমঃ  এফএফএস গঠন, কৃষক প্রশিক্ষণ,কার্যক্রমঃ শস্য বিন্যাসভিত্তিক প্রদর্শনী বাস্তবায়ন, মাঠ দিবস,  প্রশিক্ষণ, কৃষক গ্রুপ গঠন, মৌচাষ সম্প্রসারণ, ডিজিটাল মনিটরিং, ডাটাবেজ তৈরী, মার্কেট লিংকেজ তৈরী, কৃষি যন্ত্রপাতি বিতরন।   এসএএও প্রশিক্ষণ, মেকানিক প্রশিক্ষণ, কারিগরি কর্মকর্তা প্রশিক্ষণ, পানি ব্যবস্থাপনা প্রদর্শনী, মাঠ দিবস।

4।

বছরব্যাপী ফল উৎপাদনের মাধ্যমে পুষ্টি উন্নয়ন শীর্ষক প্রকল্প, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর

 

 

২৯৯২৩.০০

(জুলাই/১৫-জুন/২০)

১ম সংশোধিত

ড. মোঃ মেহেদি মাসুদ,

ফোনঃ ৮৮-২-৯১০১১৭৫,

মোবাঃ ০১৭১৬২৬০৬৯৫

উদ্দেশ্যঃ ১) দেশের ৩ টি পাহাড়ী জেলাসহ অন্যান্য জেলার অসমতল ও পাহাড়ী জমি এবং উপকুলীয় ও অন্যান্য অঞ্চলের অব্যবহৃত জমি ও বসতবাড়ীর চার পাশের জমিকে আধুনিক পদ্ধতিতে চাষাবাদের আওতায় এনে উদ্যান ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি করার পাশাপাশি সমতল ভূমিতে অন্যান্য মাঠ ফসলের উৎপাদনের সুযোগ অক্ষুনণণ রাখা;  ২) দেশীয় এবং রপ্তানীযোগ্য ফসলের ক্লাষ্টার/ক্লাব ভিত্তিক উৎপাদন ৩) বিদ্যমান হর্টিকালচার সেন্টার সমুহের অবকাঠামো উন্নয়ন ও আধুনিকায়ন এবং প্রসত্মাবিত নতুন হর্টিকালচার সেন্টার স্থাপনের মাধ্যমে মান সম্পন্ন চারা কলম উৎপাদন বৃদ্ধি; ৪) উদ্যান ফসলের প্রযুক্তি সম্প্রসারণ; ৫) নারীর ক্ষমতায়ন, আয় বৃদ্ধি এবং উদ্যান বিষয়ে কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে দারিদ্র্য বিমোচন।

৪৫টি জেলার ৩৬২ টি উপজেলা ও ৬০টি উদ্যান উন্নয়ন কেন্দ্র

 

কার্যক্রমঃ  প্রশিক্ষণ ও শিক্ষা সফর, প্রদর্শনী, যানবাহন ক্রয়, কৃষি যন্ত্রপাতি ও অফিস সরঞ্জাম ক্রয়, নির্মান ও পূর্ত, নগর বিক্রয় কেন্দ্র, ফল প্রক্রিয়াজাতকরণ ফ্যাক্টরী নির্মাণ, হর্টিকালচার সেন্টারের লজিষ্টিক সাপোর্ট ও অবকাঠামো উন্নয়ন।

 

5।

কৃষক পর্যায়ে উন্নতমানের ডাল, তেল  ও মসলাবীজ উৎপাদন, সংরক্ষণ ও বিতরন প্রকল্প (৩য় পর্যায়), কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর

 

১৬৫২৫.৯০

(জুলাই/১৭-জুন/২২)

 

 

জনাব মোঃ খায়রুল আলম,

ফোনঃ ৮৮-০২-৯১১৬১৪৬,

মোবাঃ ০১৯১৫১৬১৭৮৪

উদ্দেশ্যঃ ১) ইউনিয়ন ভিত্তিক ‘‘বীজ এসএমই’’ স্থাপনের মাধ্যমে কৃষক পর্যায়ে উন্নত বীজ নিশ্চিতকরণ; ২)। উন্নত বীজ ব্যবস্থাপনা ও অধুনিক প্রযুক্তি প্রয়োগে ডাল, তেল ও মসলা ফসলের উৎপাদন বৃদ্ধি; ৩) ডাল, তেল ও মসলা আমদানী হ্রাসের মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রার সাশ্রয়; ৪) মৌ চাষের মাধ্যমে ফসলের ফলন বৃদ্ধি এবং গ্রামীণ কর্মসংস্থান সৃষ্ঠি করা; ৫) সুষম মাত্রায় ডাল, তেল ও মসলা সরবরাহ করে মানব স্বাস্থ্যের পুষ্টি নিশ্চিত করা; ৬) উন্নত মানের বীজ ব্যবস্থাপনার ও মৌ  চাষে মহিলাদের অংশগ্রহণে গ্রামীণ দারিদ্য্র হ্রাস  এবং ৭) শস্য বিন্যসে ডাল, তেল ও মসলা ফসল অর্ন্তভূক্ত করে পানি সাশ্রয় ও মাটির স্বাস্থ্য সুরক্ষা।

সকল জেলার সকল উপজেলা

কার্যক্রমঃ  বীজ এসএমই গঠন, কর্মশালা, বীজ উৎপাদন পস্নট, বীজ প্রত্যয়ন, মাঠ দিবস, ওজন মেশিন, সেলাই মেশিন, ময়েশ্চার মিটার, বীজ সংরক্ষণ পাত্র, আধুনিক বীজ চালুনী, মৌ-বাক্স ও এক্সট্রাকটর, কৃষক প্রশিক্ষণ, এসএএও প্রশিক্ষণ, অফিসার প্রশিক্ষণ-, উদ্বুদ্ধকরণ প্রশিক্ষণ ও কৃষক পুরস্কার। 

6।

সৌরশক্তি ও পানি সাশ্রয়ী আধুনিক প্রযুক্তি সম্প্রসারণের মাধ্যমে ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি পাইলট প্রকল্প

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর

 

৬৫৭০.৩৬

(জুলাই/১৭-জুন/২২)

 

জনাব মুহাম্মদ রুবাইয়াৎ-উর-রহমান

মোবাঃ ০১৭১৮১৫৪১৫০

উদ্দেশ্যঃ  ১)  সেচ কাজে সৌবশক্তি ব্যবহার করে জ্বালানী তেল/বিদ্যুৎ সাশ্রয় ৯৫-১০০%; ২)  আধুনিক পানি ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে সেচ দক্ষতা উন্নয়ন; ৩) ভু-উপরিস্থ পানির ন্যূনতম ব্যবহারের মাধ্যমে সেচ পানির প্রাপ্যতা বৃদ্ধি করা; ৪) ভহ-গর্ভস্থ পানির ব্যবহার কমিয়ে ভূ-উপরিস্থ পানি ব্যবহারে উৎসাহিত করে প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষা করা এবং সেচ খরচ কমানো;  ৫) আধুনিক খামার ব্যবস্থপনা ও পানি ব্যবহার সম্পর্কে কৃষকদের জ্ঞান বৃদ্ধি এবং সচেতন করে তোলা; ৬) সমন্বিত সেচ ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি করে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন। 

৪১টি জেলার ১০০টি উপজেলা

কার্যক্রমঃ সোলার সেচ প্রদর্শনী; বারিড পাইপ সেচ প্রদর্শনী;  ড্রিপ সেচ প্রদর্শনী; পাতকুয়া খনন; কৃষক মাঠ স্কুল; কৃষক প্রশিক্ষণ; মেকানিক প্রশিক্ষণ; কর্মকর্তা প্রশিক্ষণ; উদ্দুদ্ধকরণ ভ্রমন; মাঠ দিবস ও লজিষ্টিক সাপোর্ট প্রদান।

7।

উপজেলা পর্যায়ে প্রযুক্তি হসত্মামত্মরের জন্য কৃষক প্রশিক্ষণ (৩য় পর্যায়)

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর

 

৩১৪২৯.০০

(জানুয়ারী/১৮-জুন/২২)

 

জনাব মোঃ তাজুল ইসলাম পাটোয়ারী ফোনঃ ৮৮-০২- ৯১৩২৮১৪,

মোবাঃ ০১৫৫৩৭৪৯১৭৮

উদ্দেশ্যঃ১) প্রাতিষ্ঠানিক কৃষক প্রশিক্ষণ প্রদানের লক্ষ্যে ভৌত অবকাঠামো উন্নয়ন; ২) ১০৬টি উপজেলায় কৃষক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মান ও ২০টি ইউনিয়ন কৃষক সেবা কেন্দ্র নির্মণ; ৩) আধুনিক কৃষি ব্যবস্থাপনা বিষয়ে কৃষকদের পরিকল্পিত, বাস্তবধর্মী ও হাতে কলমে প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে তাঁদের দৃষ্টিভঙ্গির উন্নয়ন; ৪) সম্প্রসারণ কর্মীদের কারিগরী দক্ষতা বৃদ্ধির মাধ্যমে কৃষি গবেষণা লব্ধ ফলাফল ও মাঠ পর্যায়ের ফলাফলের মধ্যে ফলন পার্থক্য কমানো।

৪৮টি জেলার ১২৩টি উপজেলা

কার্যক্রমঃ কৃষক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণ, ইউনিয়ন কৃষক সেবা কেন্দ্র নির্মাণ; কৃষক প্রশিক্ষণ, কর্মশালা; ব্লক প্রদশর্নী ও মাঠ দিবস; কর্মকর্তা প্রশিক্ষণ; এসএএও প্রশিক্ষণ ও লজিষ্টিক সাপোর্ট প্রদান।  

8।

কৃষি আবহাওয়া তথ্য পদ্ধতি উন্নতকরণ প্রকল্প

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর

 

১১৯১৮.০৮

(জুলাই/১৬-জুন/২১)

 

ড. মো. শাহ কামাল খান,

ফোনঃ ০২-৫৫০২৮৪২২

মোবাঃ ০১৭১২১৮৪২৭৪

উদ্দেশ্যঃ ১) কৃষকগণের নিকট কৃষি আবহাওয়া সংক্রামত্ম তথ্যাদি পৌঁছে দেওয়া, আবহাওয়া এবং জলবায়ুর ক্ষতিকর প্রভাবসমূহের সাথে কৃষকগণের খাপ খাওয়ানোর সক্ষমতা বৃদ্ধি করা;  ২) কৃষি আবহাওয়া তথ্য পদ্ধতি প্রচলন করা এবং যথোপযুক্ত তথ্য এবং উপাত্ত প্রণয়ন করা; ৩) কৃষি ক্ষেত্রে আবহাওয়া সংক্রামত্ম ঝুঁকি সম্পর্কিত তথ্যাদি কৃষকগণের নিকট পৌঁছে দেয়া; (ঘ) কৃষি আবহাওয়া তথ্য পদ্ধতি উন্নতকরণের মাধ্যমে ডিএই’র সক্ষমতা বৃদ্ধি করা।

সকল জেলার সকল উপজেলা

কার্যক্রম ঃ এগ্রো-মেট্রোলজিকেল ডাটাবেইস প্রস্ত্ততকরণ, একটি কমপ্রিহেন্সিভ ওয়েবসাইট সেট করা, এগ্রো-মেট্রোলজিকেল পরামর্শ সেবা প্রদান, ৬৪ জেলায় ৪৮৭টি উপজেলার আবহাওয়া ও জলবায়ু সেবা সংক্রামত্ম কৃষকের চাহিদা নিরম্নপন, ৪০৫১টি ইউনিয়ন স্বয়ংক্রিয় রেইন গেজ ও  এগ্রো-মেট্রোলজিকেল ডিসপেস্ন বোর্ড স্থাপন, ৪৮৭টি উপজেলায় এগ্রো-মেট্রোলজিকেল কিওস্ক স্থাপন।

9।

পরিবেশ বান্ধব কৌশলের মাধ্যমে নিরাপদ ফসল উৎপাদন প্রকল্প,  (অক্টোবর/১৮-জুন ২০২৩), 

(অক্টোবর/১৮-জুন ২০২৩)

জনাব আহসানুল হক চৌধুরী, প্রকল্প পরিচালক,  ফোনঃ ৯১১৫২৬৪, ০১৭৭৭৫১৭৪৪

উদ্দেশ্যঃ ১) নিরাপদ ফসল উৎপাদন বৃদ্ধির মাধ্যমে বাংলাদেশের জনগণের খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিত করা , ২) প্রশিক্ষণের মাধ্যমে কৃষকের কারিগরি দক্ষতা এবং নিরাপদ খাদ্য ও পুষ্টি বিষয়ক সচেতনতা বৃদ্ধি করে কৃষক, শ্রমিক ও ভোক্তার শারীরিক-মানষিক স্বাস্থ্য নিশ্চিত করা,  ৩) খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ ও নিরাপদ খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য প্রদর্শনী স্থাপনের মাধ্যমে প্রমানিত আধুনিক প্রযুক্তির সম্প্রসারণ করা, ৪) প্রকল্পের বিভিন্ন কার্যক্রমে মহিলাদের সম্প্রক্ততা বৃদ্ধির মাধ্যমে নিরাপদ ও গুনগত মানসম্পন্ন ফসল উৎপাদনে সচেতনতা বৃদ্দি এবং আয়ের সুযোগ সৃষ্টি করা, ৫) সর্বোপরি টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যে খাদ্য ও পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিতকরা। 

জেলার 

টি উপজেলা

কার্যক্রম ঃ জৈব কৃষি ও জৈবিক বালাই ব্যবস্থাপনা প্রদর্শনী-৩৫৫৬০টি, আইপিএম মডেল ইউনিয়ন স্থাপন-২০টি, স্কুল আইপিএম-৩১৭টি, কৃষক মাঠ স্কুল-{(ধান, সবজি ও ফল)-ধান-১২৬৮টি, ভুট্টা-৩১৭টি, সবজি-৬৩৪০টি, ফল-৪৬৬টি}, ওরিয়েন্টেশন কোর্স (বিভাগীয় কর্মকর্তা)-২২ ব্যাচ (৬৬০জন), রিফ্রেসার্স কোর্স (এফটি)-১২ব্যাাচ (৩৬০ জন), টিওটি (বিভাগীয় প্রশিক্ষক)-৫ ব্যাচ (৪০০জন), টিওটি (কৃষক প্রশিক্ষক)--২১ ব্যাচ (৬৩০জন), ক্র্যাস কোর্স ফর ট্যাগ এসএএও-২১ ব্যাচ (৬৩০জন), আইপিএম ক্লাব সহায়তা-১৫৮৫টি।  

10।

লেবু জাতীয় ফসলের সম্প্রসারণ, ব্যবস্থাপনা ও  উৎপাদন বৃদ্ধি প্রকল্প 

 

 

(এপ্রিল/১৯-ডিসেম্বর ২০২৪), অনুমোদিত, জিওবি 

জনাব ফারুখ আহমদ,

প্রকল্প পরিচালক

মোবাইল নম্বরঃ ০১৭১২৯১৭২৬২

উদ্দেশ্যঃ  ১) প্রকল্প এলাকায় লেবু জাতীয় ফল চাষ নিবিড়করণ ও প্রায় ১০-১৫% ফলন বৃদ্ধির মাধ্যমে কৃষি উৎপাদন ও উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি করা, ২) প্রকল্প এলাকায় অতিরিক্ত ৪০,০০০ মে.টন মাল্টা ও কমলা উৎপাদনের মাধ্যমে প্রায় ৪০০ কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয়, ৩) প্রকল্প এলাকায় মাল্টা ও অন্যান্য লেবু জাতীয় ফল উৎপাদন ও ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে প্রকল্পের এলাকায় বাইরের ২৫% কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করা, ৪) প্রকল্প এলাকার ২০টি সরকারী নার্সারীতে লেবু জাতীয় ফলের মাতৃবাগান স্থাপন ও চারা উৎপাদনের দক্ষতা প্রায় ২৫% বৃদ্ধি করা, ৫) প্রকল্প এলাকায় প্রদর্শনীভুক্ত কৃষকদের বিশেষ করে মহিলা কৃষকদের সহ অন্যান্য কৃষকদের আয় ১০% বৃদ্ধি করা ও ৮-১০% বেকারত্ব দূর করা, ৬) সাইট্রাস ডেভেলপমেন্ট ও কমলা উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় স্থাপিত ৫০০০টি পুরাতন বাগানের ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে ফলন ১৫-২০% বৃদ্ধি করা । 

জেলার 

টি উপজেলা

কার্যক্রমঃ ৫৪,১০০টি লেবু জাতীয় ফসলের (মাল্টা, কমলা, বাতাবী লেবু ও লেবু) একক/মিশ্র প্রদর্শনী, ৫০০০টি পুরাতন লেবু জাতীয় ফল বাগান পরিচর্যা, ২০টি নার্সারী ব্যবস্থাপনা, চারা উৎপাদন ও উন্নয়ন, ২০ ব্যাচ অফিসার, ১০০ ব্যাচ এসএএও এবং ১৯৭০ ব্যাচ কৃষক প্রশিক্ষণ, ২৪৬টি উদ্বুদ্ধকরণ ভ্রমণ ও ৬১৫টি মাঠ দিবস, ৩টি জাতীয় ও ৩৫টি আঞ্চলিক কর্মশালা ।

11। 

আধুনিক প্রযুক্তির মাধ্যমে কৃষক পর‌্যায়ে উন্নতমানের ধান, গম ও পাট বীজ  উৎপাদন, সংরক্ষণ ও বিতরণ প্রকল্প

(এপ্রিল/১৯-ডিসেম্বর ২০২৪), অনুমোদিত, জিওবি 

মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন প্রকল্প পরিচালক

মোবাইল নম্বরঃ

০১৭১৬৭৭৭৮০৫

উদ্দেশ্যঃ ১) সঠিক সময়ে সঠিক মূল্যে সঠিক জাতের উন্নতমানের ধান, গম ও পাট বীজ সহজলভ্য করে ফসলের উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি করা। ২) উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধির লক্ষে মানসম্মত ধান, গম ও পাট বীজ চাষী পর্যায়ে উৎপাদন ও বিপণনের  মাধ্যমে কৃষকের আর্থসামাজিক অবস্থার উন্নয়ন করা। ৩) কৃষক, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর এবং সংশ্লিষ্ট গবেষণা প্রতিষ্ঠানের মধ্যকার সম্পর্ক জোরদার করে দ্রুত চাষী পর্যায়ে এলাকাভিত্তিক লাগসই নতুন জাত সম্প্রসারণ করা। ৪) মানসম্মত বীজ উৎপাদন ও বিপণনের মাধ্যমে ইউনিয়নের বীজের চাহিদা পূরণ ৫) উন্নতমানের বীজ ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে গ্রামীন কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং গ্রামীন দারিদ্র নারীদের ক্ষমতায়নের মাধ্যমে আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন। 

জেলার 

টি উপজেলা

প্রকল্পের কার্যক্রমঃ ১) প্রদর্শনীঃ বোরো - ১২২০০ টি, আউশ - ৭০০০ টি, রোপা আমন - ১১৪০০ টি, গম- ২৮০০ টি, নাবী পাট- ১৪৮০ টি)  ও মাঠদিবস ৩৪৮৮ টি, ২) উদ্বুদ্ধকরণ ভ্রমন-১০৫ টি,৩) কৃষকদল প্রশিক্ষণ-  ১৬৭৪০ ব্যাচ, ৪) এসএএও প্রশিক্ষণ- ১৫০ ব্যাচ, ৫) কর্মকর্তা প্রশিক্ষণ- ৬০ ব্যাচ, ৬) জাতীয় কর্মশালা-৩ টি, ৭) আঞ্চলিক কর্মশালা-৬৫ টি), ৮) মনিটরিং সেবা জোরদারকরন, ৯) উপকরন সরবরাহ (বীজ, সার, বালাইনাশক, বীজ শুকানো ও সংরক্ষণ পাত্র, ময়েশ্চার মিটার, চালনি, মোড়কীকরণের যন্ত্রপাতি ইত্যাদি,  ১০) ক্ষুদ্র বীজ শিল্প স্থাপন  ।

12।

ভাসমান বেডে সবজি ও মসলা চাষ গবেষণা, সম্প্রসারণ ও জনপ্রিয়করণ প্রকল্প (ডিএই অংগ)

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর

 

 

২৬৬৫.৫৭

(জুলাই/১৭-জুন/২২)

 

জনাব মোঃ সাইফুল ইসলাম পাটওয়ারী, (উপপ্রকল্প পরিচালক),

ফোনঃ

 মোবাঃ ০১৭১২৭১৮৮০৭

উদ্দেশ্যঃ ১) প্রকল্প এলাকায় খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের নিমিত্ত কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধির ভাসমান কৃষি প্রযুক্তির বিসত্মার ঘটানো; ২)  বারি কর্তৃক উদ্ভাবিত ভাসমান কৃষির উন্নত ও লাগসই প্রযুক্তিরসমূহের বিস্তার ঘটানো এবং কৃষকদের মাঝে জনপ্রিয় করা; ৩)  ভাসমান কৃষির মাধ্যমে বারি/অন্যান্য প্রতিষ্ঠান কর্তৃক উদ্ধাবিত সবজি ও মসলা ফসলের আধুনিক জাতের বিসত্মার ঘটানো; ৪)  জলমগ্ন অবস্থায় ফসল উৎপাদনের নিবিড়তা বৃদ্ধির ও বহুমূখীকরণ এবং ভাসমান পদ্ধতিতে শাকসবজি ও মসলা চাষে ক্ষুদ্র কৃষকদের উৎসাহিত করা; ৫)  মহিলাদের ক্ষতায়ন ও অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে সঞ্চালিত করার উদ্দেশ্যে তাদেরকে কৃষি কর্মকান্ডে নিয়োজিত করা; ৬)  চাষকৃত জমির অপ্রতুলতা রয়েছে এমন স্থানে জণমগ্ন জমিতে ফসল উৎপাদেনের মাধ্যমে হিসেবে কচুরিপানার যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিৎ করা।

২৪টি জেলার ৪৬টি উপজেলা

কার্যক্রমঃ কৃষক প্রশিক্ষণ, এসএএও প্রশিক্ষণ, কর্মকর্তা প্রশিক্ষণ, জাতীয় কর্মশালা, জাতীয় সেমিনার, মসলা ফসলের প্রদর্শনী, লতা জাতীয় সবজির প্রদর্শনী, লতাবিহীন সবজির প্রদর্শনী,’ মাঠ দিবস, কৃষদের উদ্ধুদ্ধকরণ ভ্রমণ, বীজের পাত্র, পানির ঝাঝরি, ফোরোমোন ফাঁদ, কালেকটিং বাস্কেট।  

13

Abvevw` cwZZ Rwg I emZevwoi AvwObvq cvwievwiK cywó evMvb ¯’vcb cÖKí

 

K…wlwe` gnv¤§` gvB`yi ingvb

 

 

 

14

e„nËi gqgbwmsn A‡ji dm‡ji wbweoZv e„w×KiY cÖKí

 

K…wlwe` gnv¤§` wRqvDi ingvb